মহাদেবপুরে ফুলের দোকানগুলোতে পহেলা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসে প্রস্তুতি
মেহেদী হাসান, মহাদেবপুর (নওগাঁ)
অ+ অ-প্রিন্ট
যে দিনটির জন্য বিশ্বের তরুণ-তরুণীরা থাকেন অপেক্ষায়। মাত্র দুই দিন বাকি। প্রতি বছরের মত এবারও বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে সারা দেশের মত মহাদেবপুরেও উৎসবমুখর পরিবেশ লক্ষ করা যাচ্ছে। ফাল্গুনে প্রকৃতিই শুধু রং ছড়ায় না, রং ছড়ায় প্রতিটি প্রাণও। দোলা দেয় মানুষের মনে। এ সময় বর্ণিল প্রকৃতির সঙ্গে মিলিয়ে নিজেকে রাঙিয়ে উল্লাসে মেতে ওঠে তরুণ-তরুণীরা। বাসন্তি রাঙ্গা পোশাকের সঙ্গে বাহারি ফুলে সেজে বসন্ত বরণের প্রস্তুতি চলছে। ঋতু রাজ বসন্তকে বরণ করে নেওয়ার নানা প্রস্তুতি। আর এ আয়োজনে পূর্ণতা দিয়ে থাকে ফুল। পহেলা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবসে বর্ণিল শোভা বাড়াতে ফুল ব্যবসায়ীরাও নিয়েছে ব্যাপক প্রস্তুতি। সারা বছরে ফেব্রুয়ারি মাসে সবেচেয়ে বেশি ফুলের ব্যবসা হয় তাদের। এবার পহেলা ফাল্গুন (১৩ ফেব্রুয়ারি),ভালোবাসা দিবস (১৪ ফেব্রুয়ারি) কেন্দ্র করে  ফুল বিক্রির টার্গেট নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। পহেলা ফাল্গুন ও বিশ্ব ভালোবাসা দিবসকে কেন্দ্রকরে এরই মধ্যে ফুলের দাম বৃদ্ধিপেতে শুরু হয়েছে। বিক্রেতারা জানান, এখনও ফুলের দাম তেমন বাড়েনি তবে চাহিদার ওপর ভিত্তি করে ফুলের দাম নির্ভর করবে।  উৎসবকে সামনে রেখে মহাদেবপুরের  স্থায়ী দোকানগুলোর পাশাপাশি রাস্তায় বসে ফুল বিক্রি করা নারী-শিশুদেরও ব্যস্ততা বেড়ে গেছে।  ঘোষ ফুলঘরের মালিক উৎপল ঘোষ জানান, ফেব্রুয়ারিতে যে কোনো মাসের তুলনায় ভালো ফুল বিক্রি হয়। গতবার ভালো এ দিবসে ভাল ব্যবসা  হয়েছে । শহরের বাসস্ট্যান্ড,কলেজ রোড, লাইব্রেরী রোডসহ বিভিন্ন রাস্তার মোড়ে ভ্রাম্যমান ভিউকার্ড ও ফুলের দোকানে লক্ষ্য করা যায় তরুন-তরুণীরা ভালবাসা দিবস উপলক্ষে ফুল অর্ডার করছেন। কেউ ফুলের তোরা, কেউ মুষ্ঠি ফুল, কেউ শুধু গোলাপ, কেউ মালা সহ ফুল দিয়ে তৈরী বিভিন্ন জিনিস অর্ডার করছেন। এছাড়াও লক্ষ্য করা যায় বইয়ের দোকান, লাইব্রেরি থেকে তরুণ-তরুণীরা বই, সিডি, কার্ড কিনছেন। উপহার হিসেবে এবার চাহিদা আছে নানা রকম ব্যবহার্য জিনিসপত্রেরও। তাই অনেকে ভিড় করছেন বিভিন্ন ব্রান্ডের দোকানগুলোতে। মহাদেবপুরে বিভিন্ন ফুলের দোকানে দেখা যায়, চেরি, গাঁদা, জিপসি, বেলি, দেশি-বিদেশি, গোলাপ, ক্যালোনডোলা, গ্লাডিওলাস, রজনীগন্ধাসহ রং বেরং এর ফুল সংগ্রহ করছেন।

 

 

 

 

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১১:২৯:৪২