কেশবপুরে জারিগান দেয়ার নামে সরকারি গাছ কর্তন
জাহিদ আবেদীন বাবু, কেশবপুর (যশোর)
অ+ অ-প্রিন্ট
যশোরের কেশবপুরে জারিগান দেয়ার নামে কেশবপুর ভায়া ফতেপুর সড়কের বৃহদাকার একটি রোডরেন্ট্রি গাছ কর্তন করা হয়েছে। এলাকাবাসি গাছটির মূল্য ৩০ হাজার টাকা বলে দাবি করেছে। গত সোমবার সকালে প্রকাশ্য দিবালোকে গাছটি কর্তন করে এক খন্ড রেখে বাকি কাঠ মশিয়ার রহমান নামের এক ব্যবসায়ী নিয়ে গেছে।  

এলাকাবাসি জানায়, উপজেলার মজিদপুর গ্রামের আব্দুল হালিম মজিদপুর গ্রামের নতুন বাজার উদ্বোধনের জন্য বেশ কিছুদিন ধরে জারিগান পরিবেশনের তোড়জোড় করে আসছিল। এরই সূত্র ধরে সে কেশবপুর ফতেপুর সড়কের কুশুলদিয়া মোড়ের জেলা পরিষদের একটি ৩০ হাজার টাকা মূল্যের রোডরেন্ট্রি গাছ পার্শ্ববর্তী মির্জাপুর গ্রামের কাঠ ব্যবসায়ী মশিয়ার রহমানের কাছে বিক্রি করে দেয়। এলাকাবাসি গাছটি কেটে নিয়ে যেতে দেখলেও কেউ ভয়ে কাউকে খবর দিতে সাহস পায়নি বলে অভিযোগ।  

এ ব্যাপারে কাঠ ব্যবসায়ী মশিয়ার রহমান জানান, মজিদপুর গ্রামের আব্দুল হালিম গাছটি তার কাছে ৬ হাজার টাকায় বিক্রি করে দিয়েছে। 

এ ব্যাপারে আব্দুল হালিম বলেন, তার গ্রামের ছেলেপিলে নতুন বাজারে জারিগান ও খেলাধুলার আয়োজন করায় গাছটি কর্তন করা হয়েছে। জেলা পরিষদ সদস্য সোহরাব হোসেন বলেন, ওই গাছ কাটার সংবাদ শুনে ঘটনাস্থলে গিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। এরপরও যদি সে গাছ কাটে তাহলে তার বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে জেলা পরিষদের সার্ভেয়ার মনজুর হোসেন বলেন, গাছ কর্তন করা হলে উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

 

 

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২৩:৪৪:০০