বীরগঞ্জ মুক্ত দিবস পালন উপলক্ষে আনন্দ শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা
মো. নজরুল ইসলাম খান বুলু, বীরগঞ্জ (দিনাজপুর)
অ+ অ-প্রিন্ট
জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে ৩০ লক্ষ মানুষের রক্তের ও ২ লক্ষ ৬৯ হাজার মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে আমাদের অর্জিত স্বাধীনতা। আর এই স্বাধীনতা অর্জন করা সম্ভব হয়েছে যারা লড়াইয়ে অবতীর্ণ হয়েছিলেন তাদের চেতনায় ছিল স্বাধীনতা, হৃদয়ে ছিল মুক্তিযুদ্ধ ও কণ্ঠে ছিল জয় বাংলা। বর্তমান প্রজন্মের অনেকেই মুক্তিযুদ্ধের সাথে পরিচিত না। মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস যদি এই নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরা হয়, মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে তারা যদি সম্মুখ ধারনা লাভ করে তবে ভবিষ্যতে কখনো জামায়াতের সাথে গাটবাধা কোন জোট এদেশের ক্ষমতায় আশিন হতে পারবে না।

৬ ডিসেম্বর বুধবার সকালে বীরগঞ্জ মুক্ত দিবস উপলক্ষে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল এর আয়োজনে উপজেলা অডিটরিয়ামে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা গুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেই যুদ্ধপরাধীদের বিচারের আওতায় এনে তাদের বিচার শুরু করা এবং সেই বিচারের রায় কার্যকর করা সম্ভব হয়েছে। 

৬ ডিসেম্বর বীরগঞ্জ-কাহারোলের মুক্তিকামী মানুষ, বীরমুক্তিযোদ্ধা এবং মিত্র বাহিনীর সম্মিলিত আক্রমনে এই দুই উপজেলা থেকে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী পিছু হটতে বাধ্য হয়। আজকের দিনটি বীরগঞ্জ-কাহারোল বাসীর জন্য নিঃসন্দেহে স্মরনীয় দিন। এই দিনটি যদি আমরা ইতিহাসের অংশ হিসেবে সম্পৃক্ত করতে না পারি তবে স্বাধীনতা যুদ্ধে এই এলাকার মানুষের অবদান অন্ধকারাচ্ছন্নই থেকে যাবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আলম হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী কমিশনার (ভুমি) বিরোদা রানী রায়,বীরগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. খয়রুল ইসলাম চৌধুরী, উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কালী পদ রায়, চক্ষু বিশেষজ্ঞ মুক্তিযোদ্ধা ডা. শহীদুল ইসলাম খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য মো. নুর ইসলাম নুর, পৌর আওয়ামীলীগ সভাপতি মোশারফ হোসেন বাবুল,প্রভাষক নজরুল ইসলাম খান বুলু  ও জিয়াউর রহমান জিয়া প্রমুখ ।

শুরুতে দিবসটি যথাযথ মর্যদায় উদযাপনের লক্ষ্যে উপজেলা চত্বরে অবস্থিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন, তাজমহল মোড়ে শহীদ বুধারু স্মৃতিস্তম্ভে ও বীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের পাশে শহীদ মহসীন আলী’র কবরে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপালসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। 

পরে জাতীয় সংসদ সদস্য মনোরঞ্জন শীল গোপাল এর নেতৃত্বে উপজেলা চত্বর থেকে  এক বিশাল আনন্দ শোভাযাত্রা উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে। আনন্দ শোভাযাত্রায় বীরগঞ্জের মুক্তিযোদ্ধা, রাজনৈতিক, সামাজিক-পেশাজীবি, সাংবাদিক সংগঠন, স্কুল-কলেজ ও মাদ্রসাসহ সকল শ্রেণী-পেশার মানুষ অংশ গ্রহন করেন। 

উল্লেখ্য, ১৯৭১ইং সালে এই দিনে মুক্তিযোদ্ধা ও ভারতীয় মিত্র বাহিনীর আক্রমনে ঢাকা-পঞ্চগড় মহাসড়কের ভাতগাঁও ব্রীজে বাংকারে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী অবস্থান নেয়। যৌথ বাহিনীর টেংক-কামান-মেশিনগান ও বিমান হামলা থেকে নিজেদের বাঁচতে পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী পালিয়ে যায়।

এদিকে একই দিনে কাহারোল উপজেলা মুক্ত দিবস উপলক্ষ্যে একই ধরনের কর্মসূচী পালন করা হয়।

আলোচনা সভা শেষে এক মনোজ্ঞ সাস্কিৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিবসটির কর্মসূচী শেষ করা হয়। 

 

০৬ ডিসেম্বর, ২০১৭ ২৩:৪৮:১৩