বাংলাদেশী কানাডিয়ান স্পোর্টস ক্লাব (BCSC) এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু
অ+ অ-প্রিন্ট
২৭ নভেম্বর ২০১৭ রবিবার থেকে ৬ ডিসেম্বর ২০১৭ বুধবার পর্যন্ত টরন্টোর ইপিক স্পোর্টস ব্যডমিন্টন স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রীতি ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্টের মাধ্যমে যাত্রা শুরু করলো বাংলাদেশী কানাডিয়ান স্পোর্টস ক্লাব (BCSC) এর।

টরন্টোর বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব এবং খেলোয়াড় প্রেমী তজমুল আলী তাজ, নাসের উদ্দিন আহমদ, সাদ চৌধুরী, মঈনূল ইসলাম, রব চৌধুরী শামীম এর প্রচেষ্ঠায় একটি অলাভজনক স্পোর্টস ক্লাব হিসাবে রেজিষ্ট্রেশন করা হয় বাংলাদেশী কানাডিয়ান স্পোর্টস ক্লাবটি। জনাব তজমুল আলী তাজ জানান, আধুনিকতার ছোঁয়ায় আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম খেলাধুলা থেকে বিচ্ছিন হয়ে পড়ছে, তাদেরকে খেলামূখী করার লক্ষ্যেই আমাদের এই প্রয়াস। ভবিষ্যতে এই ক্লাবটির পক্ষ থেকে আরও বড় পরিসরে ব্যাডমিন্টন ছাড়াও অন্যান্য খেলাধুলার আয়োজন করা হবে বলে তিনি আমাদেরকে জানান। পঞ্চাশোর্ধ জনাব নাসের উদ্দিন আহমদ এর মতে, “খেলাধুলায় বয়স কোনও বাঁধা হতে পারে না, বয়স একটি সংখ্যা মাত্র”, তিনি টরন্টোর সকল বাংলাদেশীদেরকে সপ্তাহে কয়েক ঘন্টার জন্য হলেও খেলাধুলা করার আহ্বান জানান। জনাব সাদ চৌধুরী বলেন, “আমি চেম্পিয়ান হয়ে প্রমান করতে পেরেছি যে, খেলাধুলা এমন একটি মাধ্যম যেখানে প্রচেষ্ঠা, ইচ্ছা এবং কঠোর অনুশীলনের মাধ্যমে বয়সকেও হার মানানো যায়”, তিনি সবাইকে নিজ নিজ ছেলে মেয়েদেরকে খেলাধুলায় অংশগ্রহন করতে উৎসাহ প্রদান করতে অনুরোধ করেন।

গত ১১ ডিসেম্বর সোমবার রাত ৮ টার সময় স্কারবরোস্থ গ্র্যান্ড প্যালেস ব্যাঙ্কুয়েট হলে খুবই ঘরোয়া পরিবেশে আয়োজিত হয় উক্ত ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্টের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান এবং ‘স্টেইক ডিনার’ এর। জুয়েল আহমদ মিঠূ, জবরুল ইসলাম, আরিফ হোসেন, ফয়ছল কবির টিটু এবং আরোও অনেকের অক্লান্ত প্রচেষ্ঠায় গ্র্যান্ড প্যালেস ব্যাঙ্কুয়েট হলের কিচেনে শুরু হয় রান্নাবান্না করার কাজ, ক্লাবের অন্যান্য সদস্যদের সাথে আড্ডার ফাঁকে রান্নাবান্না করা ছিলো সত্যিই উপভূগ্য। প্রায় ৪০ জন সদস্যদের উপস্থিতিতে নৈশভূজের সমাপ্তির সাথে শুরু হয় পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠান। অত্যন্ত বন্ধুত্ব্যসুলব আনুষ্ঠানিকতায় পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় থাকেন জনাব শাব্বির চৌধুরী লিটন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব জনাব নাসের উদ্দিন আহমদ, অকপার্ক মর্গেজের জনাব আসাবুদ্দিন খান, বিশিষ্ট সাংগঠনিক ব্যকিত্ব জনাব রোমান চৌধুরী, জালালাবাদ এসোসিয়েশন অব টরন্টো, কানাডার সভাপতি জনাব খসরুজ্জামান চৌধুরী দুলু, দেশের আলো পত্রিকার জনাব মাহবুব চৌধুরী এবং বিশিষ্টি ক্রীড়াবিদ জনাব এ. কে. এম. জহির প্রমূখ। বক্তব্যে সকলেই বলেন শরীর ও মন সুস্থ্য রাখতে খেলাধুলার কোনও বিকল্প নাই, খেলাধুলা ব্যয়ামের সম্পুরক বলেও তারা মনে করেন। টরন্টোতে বসবাসকারী সবাই বাংলাদেশী কানাডিয়ান স্পোর্টস ক্লাবের সদস্য হওয়ার জন্য সবাইকে আহ্বান জানান।

দ্বৈত এই ব্যাডমিন্টন টুর্ণামেন্টে মোট ১৬টি দল অংশগ্রহন করে। পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে জনাব সাদ চৌধুরী এবং জনাব রব চৌধুরী শামীম এর হাতে ১ম পুরস্কার তুলে দেন জনাব তজমুল আলী তাজ এবং জনাব নিজাম এনায়েত হোসেন এনু। জনাব নাসের উদ্দিন এবং জনাব সিহাবুন সাকিব এর হাতে ২য় পুরস্কার তুলে দেন জনাবা ফয়ছল কবির টিটু এবং জনাব জুয়েল আহমেদ মিঠু। জনাব মঈনূল ইসলাম এবং জনাব ইকবাল হোসেনের হাতে ৩য় পুরস্কার তুলে দেন জনাব ফরিদ উদ্দিন এবং জনাব আরিফ হোসেন। জনাব কাজী কায়সার রাসেল এবং জনাব এ. কে. এম জহির এর হাতে ৪র্থ পুরস্কার তুলে দেন জনাব ইফতেখার হোসেন এবং শ্রী অপু দাশ।

পরিশেষে জনাব নাসের উদ্দিন আহমেদের সমাপ্তি ঘোষনার পর ছবি তোলার মাধ্যমে অনুষ্ঠানটির পরিসমাপ্তি ঘটে।

২১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১১:৫৪:০৬