শনিবার উদ্বোধন ইংরেজিতে বাংলা সাহিত্যের বইপড়া প্রকল্প
অ+ অ-প্রিন্ট
আগামী ১৮ নভেম্বর শনিবার বিকেল ৪টায় আলবার্ট ক্যাম্পবেল লাইব্রেরিতে (৪৯৬ বার্চমাউন্ট রোড) বছর-ব্যাপী ‘ইংরেজিতে বাংলা সাহিত্যের বইপড়া প্রকল্প’-র উদ্বোধন ঘোষণা হবে। বেঙ্গলি লিটারারি রিসোর্স সেন্টার (বিএলআরসি) উদ্যোগে পরিচালিত ইংরেজি ভাষায় অনূদিত বাংলা সাহিত্যের ক্লাসিক গ্রন্থসমূহকে পড়ানোর এই প্রকল্পের উদ্বোধনী পর্বে অতিথি হিসেবে থাকবেন আমেরিকার মিশিগানের অভিবাসী বাঙালি দার্শনিক, চিকিৎসক ও সমাজসেবক ড. দেবাশিস মৃধা, লিটারারি ট্রান্সশ্লেটরস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি লেখক ও অনুবাদক বিয়াট্রিস হাউসনার, রায়ারসন বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. জনম মুখার্জী, টরন্টো স্কুল বোর্ডের ট্রাস্টি পার্থি ক্যান্ডেভাল এবং কাউন্সিলর জেনেট ডেভিস।

প্রবাসে বেড়ে ওঠা তরুণ-তরুণীদের মধ্যে বাঙালি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের চেতনার বুনন ঘটাতে প্রবাসে বাংলা ভাষা না-জানা বা কম-জানা তরুণবয়সীদের মধ্যে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য এবং বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে পরিচিত করাতেই টরন্টোর সাহিত্যামোদীদের প্রিয় সাহিত্য সংগঠন বিএলআরসি এমন একটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে বলে জানানো হয়েছে। তবে সকল কমিউনিটির সকল বয়সী পাঠকই বইপড়া প্রকল্পে অংশ নিতে পারবেন।

উদ্বোধনে ১৪ থেকে ৩০ বছর বয়সী তরুণ অংশগ্রহণকারীদের জন্যে থাকবে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য নিয়ে সংক্ষিপ্ত কুইজ প্রতিযোগিতা। প্রতিযোগিতার জন্যে ব্যবহার করা হবে কাহুত। সেরা উত্তরদাতাদের জন্যে পুরস্কারের ব্যবস্থা।

উল্লেখ করা যেতে পারে, উদ্বোধনের পর ডিসেম্বর ২০১৭ থেকে শুরু করে আগস্ট ২০১৮ পর্যন্ত প্রতি ইংরেজি মাসের প্রথম শনিবার একই লাইব্রেরির অডিটোরিয়ামে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে বই নেওয়া ও ফেরত দেওয়া হবে। সামনের বছর আগস্ট মাসে তরুণ অংশগ্রহণকারীরা বাংলা সাহিত্য নিয়ে তাঁদের পাঠের ওপর একটি লিখিত মূল্যায়ন জমা দেবে। সেপ্টেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত সমাপনী অনুষ্ঠানে সেরা দশ মূল্যায়ন নিয়ে প্রকাশিত হবে একটি স্মরণিকা। আর সেরা তিন তরুণ লেখককে দেওয়া হবে নগদ অর্থমূল্যে পুরস্কার। আয়োজকদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, পুরো প্রকল্পটির ভাষা হবে ইংরেজি।  

সংগৃহীত বইয়ের তালিকায় যেমন থাকবে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের অনেক গ্রন্থ, তেমনি থাকবে শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, কাজী নজরুল ইসলাম, জীবনানন্দ দাশ, শামসুর রাহমান, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়, মহাশ্বেতা দেবী, সৈয়দ শামসুল হক, হুমায়ূন আহমেদ, হাসান আজিজুল হক, সেলিনা হোসেন, নাসরীন জাহান প্রমুখ রচিত গ্রন্থের ইংরেজি সংস্করণ। থাকবে রবীন্দ্রনাথ ও নজরুলের জীবনী। আরও থাকবে লালন শাহ, হাসন রাজা, রাধারমন ও শাহ আব্দুল করিমের রচনা। থাকবে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে শহীদজননী জাহানারা ইমামের গ্রন্থও। মোটামুটি ২৮০টির মতো গ্রন্থের অনুবাদ সংগ্রহ করা গেছে বলে উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

উল্লেখ করা যেতে পারে প্রতি মাসের প্রথম শনিবার সকাল ১১টায় একই স্থানে অনুষ্ঠিত হবে একটি সাহিত্য-আড্ডা। প্রতি আড্ডায় যোগ দেবেন একজন করে কানাডীয় সাহিত্যিক। আড্ডার ভাষাটিও হবে ইংরেজি। তবে আড্ডাটি সকল বয়সীর জন্যে উন্মুক্ত থাকবে। কোন লেখক কোন মাসে উপস্থিত থাকবেন সেটি শিঘ্রই জানানো হবে। একজন তরুণের উপস্থাপনায় এই আড্ডাতে হবে উপস্থিত লেখকের গ্রন্থ থেকে পাঠ ও তাঁর রচিত সাহিত্য নিয়ে আলোচনা।    

বইপড়া প্রকল্পের পরিচালক হিসেবে কাজ করছেন মুক্তচিন্তক ও লেখক আকবর হোসেন। যে কোনো প্রয়োজনে তাঁকে ৪১৬-৩৮৫-৭৪২৩ নম্বরে ফোন করা যেতে পারে। প্রকল্পের সমন্বয়কারী হিসেবে থাকবেন তাসমিনা খান। টিমে অন্য আরও যে তরুণেরা সাথে কাজ করছে তারা হলো: অদিতি জহির, সুচনা দাস বাঁধন, শামা সালমা পূর্বা, অদিতি ফৌজিয়া, সুইটি রায়, মাসুদা জাবিন, মো. আজওয়াদ কবীর, অনন্যা ঐশ্বর্য রাফা, হাসিব করিম, অনিন্দ দাস, মেরিলিন পাণ্ডে এবং আরও অনেকে।

টরন্টো ও পার্শ্ববর্তী শহরগুলোর বাঙালি গ্রন্থপ্রেমিককে বইপড়া প্রকল্পে যুক্ত হবার জন্যে বিএলআরসি-র পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

 

১৬ নভেম্বর, ২০১৭ ০৯:৪১:৪২