কানাডার হ্যালিফ্যাক্সে বার্মার রোহিংগা গণহত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ
ফারজানা নাজ শম্পা
অ+ অ-প্রিন্ট
মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সেখানকার মিলিটারী কর্তৃক নির্বিচারে রোহিংগা হত্যা বন্ধে কার্যকর ব্যবস্হা গ্রহন করার দাবীতে কানাডার নোভাস্কশিয়া প্রদেশের হ্যালিফ্যাক্স শহরের ভিক্টোরিয়া পার্কে গতকাল রবিবার ২৯শে অক্টোবর, ২০১৭ এক সমাবেশের আয়োজন করা হয়। মায়ানমার সরকার ও সেনাবাহিনী কর্তৃক ইতিহাসের বর্বরোচিত হাজার হাজার রোহিংগা নর নারী শিশুকে হত্যা এবং লক্ষ লক্ষ রোহিংগা নরনারীকে বাস্তুচ্যুত করে পার্শ্ববর্তী বাংলাদেশে আশ্রয় নিতে বাধ্য করার প্রতিবাদে এবং জাতিসংঘের ভাষায়  'এথনিক ক্লিনজিং' সম্পর্কে বিশ্ববাসি বিশেষ করে কানাডার জনগন ও সরকারকে সচেতন করে  ইতিহাসের জঘন্যতম মানবতা বিরোধী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে জোরদার ব্যবস্হা গ্রহনে কানাডার সরকারকে আরো বেশী শক্তিশালী ভুমিকা পালন করতে জনমত সৃষ্টি করতে আয়োজিত এই সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কবি ইআই জোনস, বাংলাদেশী কমিউনিটির পরিচিত মুখ, এই প্রতিবাদী সমাবেশের অন্যতম সংগঠক, ডালহৌসি বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনৈতিক বিজ্ঞান বিষয়ে পিএইচডির ছাত্র মোহাম্মদ এহসান।

হ্যালিফ্যাক্সের সাবেক কাউন্সিলর পদপার্থী মোহাম্মদ এহসান সমাবেশে বলেন, কানাডিয়ান সরকার ইতিমধ্যেই অনেক কিছু করেছেন, তবে আরো অনেক কিছু করার আছে যাতে করে আমরা দ্রুত তার একটা শুভ ফল ও প্রভাব দেখতে পাই। তিনি আরো বলেন, জাতিসংঘের উচিত রাখাইনে একটা আন্তর্জাতিক শান্তি রক্ষী বাহিনী প্রেরন করা যাতে করে সকল শরনার্থীরা নিরাপদে স্বদেশে প্রত্যাবর্তন করতে পারে।

সমাবেশের অন্যতম সংগঠক, লেখিকা ও গবেষক, স্হানীয় বাংলা স্কুলের উদ্যোক্তা ফারজানা নাজ শম্পা সহ হ্যালিফ্যাক্সের নানা প্রান্ত থেকে ছুটে আসা বিভিন্ন ধর্ম বর্ণের লোকজন যোগদান করেন এবং 'এন্ড দ্যা জেনোসাইড ইন বার্মা', 'এন্ড দ্যা ওয়ার ক্রাইমস ইন বার্মা', 'স্টপ কিলিং ইননোসেন্ট পিপল ইন মায়ানমার' ইত্যাদি লেখা প্লাকার্ড বহন করে।

৩১ অক্টোবর, ২০১৭ ১০:১০:২৩