‘অপরূপা’ নিয়ে উত্তর আমেরিকাজুড়ে আগ্রহ
অ+ অ-প্রিন্ট
প্রতি শুক্রবার সন্ধ্যা ৮.৩০ মিনিটে এনআরবি টেলিভিশনে প্রচারিত ‘অপরূপা’ নিয়ে উত্তর আমেরিকাজুড়ে বিশেষ আগ্রহ চলছে। টরন্টোর শাড়ি হাউসের উদ্যোগে প্রচারিত বিশিষ্ট নৃত্যশিল্পী উমামা নওরোজ ইত্তেলার উপস্থাপনায় নতুন নতুন শাড়ি নিয়ে অনুষ্ঠান ‘অপরূপা’য় প্রদর্শিত হয় দেশ থেকে আনা বৈচিত্র্যময় শাড়ির সম্ভার। এক্সক্লুসিভ শাড়ির এমন উপস্থাপন উত্তর আমেরিকাতে এই প্রথম। 

একথা বর্তমানে সবাই স্বীকার করছেন যে, বিয়ের বেনারসীর ব্যাপারে সারা উত্তর আমেরিকাতে শাড়ি হাউসের জুড়ি আর দ্বিতীয়টি নেই। শুধু তাই নয়, শাড়ি হাউসের অলঙ্কার ও অন্যান্য সামগ্রীও অভিজাত নারীদের বিশেষ দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। 

‘অপরূপা’ নিয়ে শাড়ি হাউসের কর্ণধার রিঙ্কির সাথে কথা বললে তিনি জানান, “উত্তর আমেরিকায় বাঙালিরা বাস করেন দূর দূর শহরে। তাদের জন্যে দোকানে এসে নিয়মিত শাড়ি দেখার সুয়োগ হয় না। ‘অপরূপা’তে আমরা সেই সুযোগটা করে দিতে চেয়েছি। দর্শক প্রথমে টিভিতে দেখবেন কোন কোন নতুন শাড়ি এলো সাত সমুদ্র তের নদী পার হয়ে। তারপর পছন্দের শাড়িটি দেখতে বা কিনতে তিনি দোকানে আসবেন। এতে প্রবাসের মূল্যবান সময়ের বিরাট অংশ তিনি বাঁচাতে পারবেন।” 

গুয়েল্ফ-নিবাসী বিশিষ্ট রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী চিত্রা সরকার বলেন, “সারা সপ্তাহ ধরে আমরা অপেক্ষা করি কখন ‘অপরূপা’ প্রচারিত হবে। মাসের প্রথম শুক্রবারে তো আমাদের দিনের সময় কাটতেই চায় না কারণ ওইদিন প্রচািরত হয় ‘অপরূপা’র নতুন এপিসোড।”

টরন্টোর আরেক জনপ্রিয় শিল্পী আইরিন আলম বলেন, “শাড়ি নিয়ে প্রবাসে যে এমন অনুষ্ঠান করা সম্ভব, সেটা ‘অপরূপা’র আগে ধারণাই করতে পারিনি। প্রবাসী নারীদের জন্যে অসাধারণ এক আয়োজন এটি।”

উল্লেখ করা যেতে পারে যে, ‘অপরূপা’র নতুন এপিসোড প্রচারের সাথে সাথেই শুধু টরন্টো বা কানাডার দূরবর্তী শহর নয়, আমেরিকার বিভিন্ন শহর থেকেও শাড়ি হাউসে ফোন আসতে শুরু করে বিভিন্ন শাড়ি বিষয়ে প্রশ্ন নিয়ে। 

শাড়ি হাউসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, টেলিভিশনে শাড়ি দেখে দূর শহরের আগ্রহী কেউ যদি টরন্টোতে আসতে নাও পারেন, তাহলেও ডাকযোগে শাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়ে থাকে।     

 

০৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৪২:১৫